ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১

ড. ওয়াজেদ মিয়ার জন্মস্থানে আলো ছড়াবে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২৪, ১১:৩০ রাত  

ছবি সংগৃহীত

উত্তরবঙ্গের যুবসমাজের আত্ম-কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের বাস্তবায়নে দেশবরেণ্য প্রয়াত পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়ার জন্মস্থান রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার লালদীঘি ফতেহপুরের আরিজপুর মৌজায় নির্মিত হয়েছে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার। 

এতে গ্রাফিক্স ডিজাইন, ভিডিও এডিটিং, ওয়েব এপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট, ওয়েব সাইট ডিজাইন, টুডি-থ্রিডি এনিমেশন, অপটিমাইজেশন ও ডিজিটাল মার্কেটিংসহ প্রযুক্তি নির্ভর উন্নততর প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে। এখানে প্রশিক্ষণ নিয়ে বেকার যুব ও যুব মহিলারা নিজেরা উদ্যোক্তা হওয়ার পাশাপাশি অপরকে উদ্যোক্তা তৈরিতে নিজেরা প্রশিক্ষকের ভুমিকা পালন করতে পারবে। একটি দক্ষ যুব সমাজ গড়তে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টারের গুরুত্ব অপরিসিম। শিক্ষিত বেকার তরুণ ও তরুণীদের কম্পিউটার প্রশিক্ষনের মাধ্যমে দক্ষ মানব সম্পদে গড়ে তোলাই এই ইনকিউবেশন সেন্টারের মূল লক্ষ্য। 

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের তথ্যমতে, ২০১৭ সালের জানুয়ারি মাসে দরপত্র আহবানের মাধ্যমে দেশের সিলেট, কুমিল্লা, নেত্রকোনা, চট্রগ্রাম, নাটোর, মাগুরা, বরিশাল ও রংপুরসহ ৮টি জেলায় শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। এসএসসি ও এইচএসসি পর্যায়ে ছাত্র-ছাত্রীদের আইটিতে দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তোলার মাধ্যমে মানব সম্পদ উন্নয়ন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতে উদ্যোক্তা তৈরিতে সহায়তা, একাডেমি এবং আইটি ইন্ড্রাস্ট্রির মধ্যে সেতুবন্ধন প্রতিষ্ঠাসহ আইটি/আইটি সম্পর্কিত খাতে দেশের যুব সমাজের আত্ম-কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করাই এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য। 

পরামর্শক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ কনসালটেন্ট লিমিটেড (বিসিএল) এসোসিয়েটের প্রকৌশলী আনোয়ার হোসেন ও উপজেলা সহকারী প্রোগ্রামার আশফাকুল ইসলাম জানান, ২০১৭ সালে দরপত্রের মাধ্যমে ও জমি অধিগ্রহণের পর ২০২১ সালের জানুয়ারিতে মেসার্স রহমান ট্রেডার্স, ঢাকা নামক ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান রংপুরের পীরগঞ্জে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার নির্মাণে কার্যাদেশ প্রাপ্ত হয় এবং ২০২৩ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্য কাজ সমাপ্তির সময়কাল বেঁধে দেয়া হয়। কার্যাদেশ প্রাপ্তির পর পীরগঞ্জ উপজেলার লালদীঘি ফতেহপুরের আরিজপুর মৌজায় ৩ দশমিক ০৯ একর জমির উপরে ৫৮ কোটি ৯২ লাখ ৪৪ হাজার ৬৪৪ টাকা ব্যয়ে ইনকিউবেশন সেন্টারটি নির্মিত হয়। ৬তলা বিশিষ্ট মূল ভবনের ৬টি ফ্লোরে প্লাগ এন্ড প্লে, ইনকিউবেশন সেন্টার, ল্যাবরুম, অত্যাধুনিক জিম সেন্টার, কর্মকর্তাদের আবাসিক রুম, উদ্যোক্তাদের বিজনেস ফ্লোর, সার্ভার রুম ও সাইবার ক্যাপ রয়েছে। অপরদিকে আরেকটি দ্বি-তল ভবনে ক্যান্টিনসহ মিনি অডিটোরিয়াম রয়েছে। 

জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান সিদ্দিকি রনি জানান, দেশবরেন্দ্র প্রয়াত পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়ার গ্রামের বাড়ি ফতেহপুরের স্মৃতিধণ্য স্থানে প্রকল্পটি স্থাপনের মাধ্যমে সম্পুন্ন এলাকাটি আলোকিত হয়েছে। আলোকিত মানুষের এলাকাকে আরও আলোকিত করতে স্থান নির্বাচনে সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। 
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইকবাল হাসান জানান, “শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার এর মাধ্যমে প্রতিবছর সারাদেশে প্রায়  ১৬ হাজার প্রশিক্ষণার্থী প্রশিক্ষণ গ্রহণ করতে পারবে। পীরগঞ্জ উপজেলায় খুব শিগগিরই প্রতিষ্ঠানটি চালু হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এই ট্রেনিং সেন্টার থেকে প্রতিবছর প্রায় ২ হাজার এরও বেশি শিক্ষিত বেকার যুবক/যুব মহিলারা ট্রেনিং গ্রহণ করতে পারবে। এতে করে আইসিটি খাতে নতুন-নতুন উদ্যোক্তা তৈরী, আইটিতে দক্ষ মানব সম্পদ এবং যুব সমাজের আত্ম-কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।”

রংপুরের জেলা প্রশাসক মোবাশে^র হাসান বলেন, এগিয়ে যাচ্ছে রংপুর। ঐতিহ্যবাহী এই জেলা সবসময়ই প্রসিদ্ধ ছিল শিক্ষা, চিকিৎসা এবং ক্রীড়াঙ্গনে। সেই ধারাবাহিকতায়, সুখী সমৃদ্ধ, উন্নত, স্মার্ট জেলা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবার লক্ষ্যে- দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তোলার মানসে দক্ষতা মান ভিত্তিক কারিগরি শিক্ষা ও প্রশিক্ষণে গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। এই সেন্টার আমাদের আকাক্সক্ষার প্রতিফলনে অনন্য ভূমিকা পালন করবে মর্মে আমি বিশ্বাস করি।  

পীরগঞ্জ আসনের এমপি স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, আমি আশা করি- শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এবং ইনকিউবেশন সেন্টারের মাধ্যমে পীরগঞ্জে অসংখ্য তরুণ-তরুণীকে আইটি প্রশিক্ষণ দান করার মধ্য দিয়ে অর্থ উপার্জন ও সাবলম্বী করা সম্ভব হবে। আইটি প্রশিক্ষণ পীরগঞ্জের তরুণদের জন্য উজ্জ¦ল ভবিষ্যতের দ্বার উন্মোচন করবে।